জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন কপি ডাউনলোড পিডিএফ PDF ২০২২

জন্ম নিবন্ধন প্রত্যেক শিশুর মৌলিক অধিকার। তাই বাংলাদেশ সরকার সকল নাগরিকের জন্য জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক ঘোষণা করেছে। বর্তমানে জন্ম নিবন্ধন সনদ বিভিন্ন কাজে ব্যবহৃত হয়। তাই সন্তান জন্মের পর জন্ম নিবন্ধন অফিসে গিয়ে জন্ম নিবন্ধন করতে হবে। কিন্তু জন্ম নিবন্ধন অফিসে গিয়ে জন্ম নিবন্ধনের তেমন সুযোগ নেই। তাই ইন্টারনেট এখন সমাধান করেছে। ইন্টারনেট ব্যবহার করে আপনি সহজেই জন্ম নিবন্ধন সনদ সংগ্রহ করতে পারেন। জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন কপি ডাউনলোড পিডিএফ PDF ২০২২ এর সকল তথ্য নিচে তুলে ধরা হলঃ

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড

১. জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড
২. জন্ম নিবন্ধন কি?
৩. জন্ম নিবন্ধন ব্যবহার কি?
৪. জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করুন
৫. জন্ম নিবন্ধন সংশোধন
৬. জন্ম তথ্য সংশোধনের জন্য শর্তাবলী
৭. অনলাইন জন্ম নিবন্ধন আবেদন
৮. জন্ম নিবন্ধন ফর্ম কোথায় পাওয়া যাবে?
৯. জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করুন | জন্ম নিবন্ধন যাচাইকরণ
১০. জন্ম নিবন্ধন ফি ২০২২

অনলাইনে জন্ম শংসাপত্র ডাউনলোড করার প্রক্রিয়া শুরু করতে আপনি বেশ কিছু পদক্ষেপ নিতে পারেন। অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্রের জন্য আবেদন করুন। তারপর ফর্মটি পূরণ করে জমা দিতে হবে। আমরা খুব সহজে আপনাকে এই সমস্ত পদ্ধতি ব্যাখ্যা করব। এটা অনেক কঠিন হতে পারে চিন্তা. না, মোটেও না, কাজটি খুবই সহজ, কিছু সঠিক পথ অনুসরণ করলেই আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন কপি পাবেন। আসুন জেনে নেই জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড ২০২২ সম্পর্কে।

জন্ম নিবন্ধন কি?

জন্ম নিবন্ধন সনদ একটি শিশুর মৌলিক অধিকার রক্ষার প্রধান দলিল। আর বাংলাদেশ সরকার প্রত্যেক নাগরিকের জন্য তা সংগ্রহ করা বাধ্যতামূলক করেছে।

নিবন্ধন সনদ একটি শিশুর জন্ম নিবন্ধন আইন। যা জাতিসংঘের শিশু অধিকার কনভেনশন, ২০০৪ এর ধারা ২৯ এর অধীনে একটি শিশুর জন্য একটি জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্র। এই শংসাপত্রে, শিশুর নাম, লিঙ্গ, জন্ম তারিখ, পিতামাতার নাম এবং ঠিকানা নিবন্ধিত হয়।

এই রেজিস্টার চিঠিটি অফিসিয়াল রেজিস্টারের সাথে সংযুক্ত। আর সরকার সাধারণ মানুষকে যে চিঠি দেয় তা মূলত জন্ম নিবন্ধন সনদ। মূলত জন্ম নিবন্ধন পত্রকে পরিচয়পত্র হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

জন্ম নিবন্ধন ব্যবহার কি?

অনেক সরকারি ও বেসরকারি খাতে জন্ম নিবন্ধন প্রয়োজন। জন্ম নিবন্ধন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি পাওয়া সবকিছুর জন্য উপযোগী। জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া জন্ম নিবন্ধন কার্ড ব্যবহার করা যাবে। নিম্নলিখিত জন্ম নিবন্ধন সবচেয়ে সাধারণ ধরনের একটি তালিকা:

১. জাতীয় পরিচয়পত্রের রসিদ
২. বিবাহ নিবন্ধন
৩. ড্রাইভিং লাইসেন্স সমস্যা
৪. ভোটার তালিকা প্রণয়ন
৫. একটি ব্যাঙ্ক একাউন্ট খুলুন
৬. পাসপোর্ট সমস্যা
৭. গ্যাস, পানি, টেলিফোন এবং বিদ্যুৎ সংযোগ গ্রহণ করুন
৮. টিআইএন বা ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর পান
৯. চুক্তির লাইসেন্স প্রাপ্তি
১০. ট্রেড লাইসেন্স প্রাপ্তি
১১. বাড়ির নকশা অনুমোদনের রসিদ
১২. গাড়ির রেজিস্ট্রেশনের রসিদ
১৩. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান
১৪. আমদানি ও রপ্তানি লাইসেন্স প্রাপ্তি
১৫. সরকারি, বেসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ
১৬. জমি রেজিস্ট্রেশন
১৭. জন্ম নিবন্ধন সনদ অন্যান্য অনেক কাজেও ব্যবহার করা হয়।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করুনঃ

নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে, অনলাইন জন্ম নিবন্ধন তথ্য সিস্টেম বা বাংলাদেশ সরকারের অনলাইন BRIS ওয়েবসাইটে যান। এর পরে আপনাকে প্রদত্ত তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করতে জন্ম নিবন্ধনের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করার সঠিক নিয়মঃ

ক) প্রথমে, অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সিস্টেম বা অনলাইনে BRIS ওয়েবসাইট অ্যাক্সেস করেন।

খ) ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর আপনি একটি ওয়েবপেজ দেখতে পাবেন। যা এই মত হবে.

গ) আপনার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য প্রথম ফাঁকা বাক্সটি হল যার জন্ম নিবন্ধন তথ্য আপনি যাচাই করতে চান। তারপর জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্রে ১৭ সংখ্যার নম্বর দিন।

ঘ) দ্বিতীয় বক্সে জন্ম তারিখ লিখুন যার জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্র।

ঙ) আর জন্মতারিখ ১ জানুয়ারি ১৯৯০ হলে দ্বিতীয় বক্সে (১৯৯০-০১-০১) এভাবে লিখতে হবে।

চ) উভয় বাক্সে সঠিক তথ্য দেওয়া হয়ে গেলে, আপনাকে যাচাই-এ ক্লিক করতে হবে।

ছ) ভেরিফাই এ ক্লিকের পর যার জন্ম নিবন্ধন যাচাই করা হবে, তার জন্ম নিবন্ধনের সমস্ত তথ্য স্ক্রিনে প্রদর্শিত হবে।

জ) প্রদর্শিত তথ্য যাচাই করা আবশ্যক. আর যাচাই করার পর যদি Matching Birth Records Not Found লেখাটি দেখা যায়, তাহলে বক্সে উল্লেখিত দুটি বক্সে দেওয়া জন্ম নিবন্ধন নম্বর বা জন্ম তারিখ ভুলভাবে দেওয়া হয়েছে।

যদি আপনি পদ্ধতিটি সঠিকভাবে অনুসরণ না করেন, তাহলে আপনি জন্ম নিবন্ধনের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন না।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনঃ

আপনার জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্রে কোনো তথ্য ভুল থাকলে চিন্তা করার দরকার নেই। একটি সমাধান আছে. আপনি সঠিক পথ অনুসরণ করলে, আপনি সহজেই আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারেন। জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আপনি অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। আর তার জন্য রয়েছে “জন্ম তথ্য সংশোধনের আবেদন” নামে একটি ওয়েবসাইট। এর কাজগুলো নিচে দেয়া হলো।

ক) প্রথমে, “জন্ম তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন” ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। এভাবে প্রবেশ করার পর ওয়েবসাইটটি দেখায়।

খ) এখানে আপনি দুটি খালি বাক্স দেখতে পাবেন। সেখানে আপনাকে আপনার জন্ম নিবন্ধনের ১৭ সংখ্যার নম্বর এবং জন্ম তারিখ দিতে হবে।

গ) তারপর আপনাকে সমস্ত সঠিক তথ্য প্রদান করতে হবে এবং অনুসন্ধানে ক্লিক করতে হবে।

ঘ) ক্লিক করার পরে, সার্ভার আপনার জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্রের সমস্ত তথ্য প্রদর্শন করবে।

ঙ) তারপর আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য দেখতে সক্ষম হবেন। তাদের অনুসরণ করে আবেদন করতে হবে।

প্রথম বাক্সে জন্ম সনদে জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং দ্বিতীয় বাক্সে জন্ম সনদে জন্ম তারিখ দিন। আপনি সঠিক জন্ম নিবন্ধন নম্বর এবং জন্ম তারিখ প্রদান করতে সার্ভারে জন্ম শংসাপত্র সম্পর্কে তথ্য দেখতে পাবেন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের নিয়মঃ

নিবন্ধন সংশোধনের উল্লিখিত ওয়েবসাইটে সঠিক তথ্য প্রদানের পর, জন্ম নিবন্ধন সংশোধন সংক্রান্ত তথ্য স্ক্রিনে প্রদর্শিত হবে। প্রদত্ত তথ্য অনুসরণ করে আপনি জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারেন।

জন্ম তথ্য সংশোধনের জন্য শর্তাবলীঃ

আপনার জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্রে তথ্য ভুল থাকলে, আপনাকে সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে। আর আবেদন করতে হলে কিছু শর্ত ও নিয়ম মেনে চলতে হবে।

ক) জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেট নিবন্ধনকারী ব্যক্তির পিতামাতার নাম সংশোধন করার প্রয়োজন হলে পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর প্রয়োজন হবে (এই ক্ষেত্রে তাদের জন্ম নিবন্ধন সনদ না থাকলে অবশ্যই জন্ম নিবন্ধন করতে হবে)।

খ) যদি পিতামাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং জন্ম তারিখ ০১/০১/২০০০ এর আগে হয়, তাহলে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করার সময় আপনার পিতামাতার নাম সংশোধন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে বাবা-মা মৃত হলে ডেথ সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন আবেদনঃ

আপনি এখন সহজেই ঘরে বসে অনলাইনে আপনার জন্ম নিবন্ধন করতে পারেন। আর এর জন্য আপনাকে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে হবে। অনলাইনে জন্ম শংসাপত্রের জন্য আবেদন করার জন্য আপনাকে যা করতে হবে তা এখানে:

ক) আপনি প্রথমে এই ওয়েবসাইট অ্যাক্সেস করতে হবে।

খ) এখন আপনি যে ঠিকানা থেকে জন্ম নিবন্ধন সনদ সংগ্রহ করতে চান সেটি নির্বাচন করুন। পরবর্তী ধাপে প্রদর্শিত পৃষ্ঠায় দেওয়া সমস্ত তথ্য সাবধানে এবং সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।

গ) অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন আবেদন ফর্মটি পূরণ করতে প্রথমে বাংলা (ইউনিকোড) এবং তারপর ইংরেজিতে প্রয়োজনীয় সম্পাদনা করার পর সংরক্ষণে ক্লিক করুন।

ঘ) এরপর আবেদনপত্রটি সংশ্লিষ্ট রেজিস্ট্রার অফিসে স্থানান্তর করা হবে।

ঙ) এখন প্রিন্ট বোতামে ক্লিক করলে আপনি আবেদনপত্রের একটি মুদ্রিত কপি পাবেন। যা পরবর্তী জন্ম নিবন্ধন পত্র পাওয়ার জন্য একটি আই-প্রিন্ট কপি লাগবে।

চ) তারপর আবেদনপত্রে নির্দেশিত শংসাপত্র সংগ্রহের ১৫ দিনের মধ্যে, আপনাকে প্রয়োজনীয় শংসাপত্রের সত্যায়িত অনুলিপি সহ রেজিস্ট্রারের অফিসে যোগাযোগ করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন ফর্ম কোথায় পাওয়া যাবে?

আপনি বাংলাদেশের জন্ম নিবন্ধন অফিসে প্রবেশ করে বা br.lgd.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে জন্ম নিবন্ধন ফর্ম ডাউনলোড করতে পারেন। এবং আপনি এই ফর্মটি পিডিএফ ফরম্যাটে ডাউনলোড করতে পারেন। যা এই মত হবে.

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড করুন | জন্ম নিবন্ধন যাচাইকরণঃ

আপনি br.lgd.gov.bd-এ আপনার জন্ম নিবন্ধন করতে এখানে ক্লিক করতে পারেন।

জন্ম নিবন্ধন ফি ২০২২

জন্ম নিবন্ধন ফি সব ক্ষেত্রে নেয়া হয় না। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে নেওয়া হয়। আর সেই জিনিসগুলো হলো-

ক) কোনো ব্যক্তির জন্ম বা মৃত্যুর ৪৫ (পঁয়তাল্লিশ) দিনের মধ্যে আবেদন করা হলে সেই ব্যক্তির জন্ম বা মৃত্যু নিবন্ধনের জন্য কোনো ফি নেওয়া হবে না।

খ) যদি কোনো ব্যক্তির জন্ম বা মৃত্যুর ৪৫ (পঁয়তাল্লিশ) দিন থেকে ৫ (পাঁচ) বছর পর তার জন্ম বা মৃত্যু নিবন্ধন করা হয়, তাহলে ২৫ টাকা ফি দিতে হবে। যা US ডলারে ১ ডলারে আসবে।

গ) জন্মতারিখ সংশোধন করতে, আপনাকে ১০০ টাকা আবেদন ফি দিতে হবে, যা US ডলারে ২ ডলার হবে।

ঘ) আপনি যদি বাংলা এবং ইংরেজি উভয় ভাষায় মূল সার্টিফিকেটের একটি কপি বা তথ্য সংশোধন করতে চান তবে এটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করা যেতে পারে।

ঙ) আপনি যদি বাংলা এবং ইংরেজি উভয় ভাষায় জন্ম নিবন্ধন শংসাপত্রের একটি অনুলিপি সরবরাহ করতে চান তবে আপনাকে ৫০ টাকা দিতে হবে। যা US ডলারে ১ ডলারে আসবে।

উপসংহার: মানুষ এখন অনলাইনে সব কাজ করে। কারণ মানুষের এখন সময়ের অভাব, তাই এখন সবাই অনলাইন। আপনি এখন সহজেই অনলাইনে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ করতে পারবেন। অনেক সময় আপনি যখন রেজিস্ট্রেশন অফিসে জন্ম নিবন্ধন করতে যান, অনেক কারণে জন্ম নিবন্ধন পেতে সময় লাগে, তাই অনলাইনে এটি করার অনেক সুবিধা রয়েছে।

আমরা আশা করি আপনি এই নিবন্ধের পরে জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড ২০২২ সম্পর্কে সমস্ত সঠিক ধারণা পাবেন। যা আপনার সমস্যা সমাধানে সাহায্য করবে।

Related Posts

ই-পর্চা eporcha gov bd

ই-পর্চা, www.eporcha.gov.bd, খতিয়ান, অনলাইনে ই-পর্চা, অনলাইনে জমির মালিকানা যাচাই, হটলাইন নম্বর

ই-পর্চা, বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয়ের ই-পর্চা সেবা একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ। www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইটে, আপনি যেকোনো খাতা দেখতে পারেন বা একটি প্রত্যয়িত অনুলিপির জন্য অনুরোধ করতে পারেন। ই-পর্চা হল বাংলাদেশের…

E-Porcha ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd

E-Porcha ই-পর্চা, www.eporcha.gov.bd, Land Services, RS Khatian, Mouza Map Online Application

Through the e-porcha (www.eporcha.gov.bd) (www.bangladesh.gov.bd) portal, Bangladeshi citizens can verify land ownership online at any time and download the ledger. E-Porcha Web Portal is a web service…

www-eporcha-gov-bd

ই-পর্চা www-eporcha-gov-bd, কিভাবে জমির মালিকানা বের করবেন? খতিয়ান কি?

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বাংলাদেশের জনগণের জন্য ই-পর্চা দেখতে অনেক সহজ করে দিয়েছে। এবার আশা করি সহজে দেখতে পারবেন? আপনি যদি মোবাইল বা কম্পিউটারের মাধ্যমে আপনার জমির রেকর্ড…

www.eporcha.gov.bd

ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd, অনলাইনে যে কোন খতিয়ান যাচাই প্রক্রিয়া 2022, খতিয়ান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের হটলাইন নম্বর, লগইন ই-পর্চা

বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয় ই-পর্চা, ই-পর্চা সেবা নিয়ে একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেছে। একটি প্রত্যয়িত অনুলিপির জন্য আবেদন করতে www.eporcha.gov.bd এ যান। একটি নতুন সেবা, ই-পর্চা, সম্প্রতি গণপ্রজাতন্ত্রী…

E-Porcha ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd

ই-পর্চা, www.bangladesh.gov.bd, খতিয়ান, মৌজা, www.eporcha.gov.bd

জমির ক্ষেত্রে খতিয়ান মানে ‘হিসাব’। জমির মালিকানা রক্ষা ও রাজস্ব আদায়ের জন্য প্রতিটি মৌজার জমির এক বা একাধিক মালিকের নাম, পিতা বা স্বামীর নাম, ঠিকানা, দাগ নম্বর,…

eporcha-gov-bd

ই-পর্চা বা ই-খতিয়ান, www.eporcha.gov.bd অনলাইনে যে কোন খতিয়ান মালিকানা যাচাই প্রক্রিয়াকরণ ২০২২

আপনি এখান থেকে ই-পর্চা সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য জানতে পারবেন। তাই যারা ই-পর্চা সম্পর্কে জানতে অনলাইনে অনুসন্ধান করে আমাদের ওয়েবসাইটে আসেন তারা এখান থেকে এটি সম্পর্কে আরও জানতে…

Leave a Reply

Your email address will not be published.