ঘরে বসে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার সেরা উপায় 2022

মোবাইলে অনলাইনে অর্থোপার্জনের স্বপ্ন অনেকের কাছে বাস্তব হলেও অধিকাংশ বাংলাদেশির কাছে এটি এখনও স্বপ্ন। কারণ, ৯০% শিক্ষার্থী মোবাইলে কাজ করে আয় করার ভুল পথ বেছে নেয়। যারা মোবাইল দিয়ে আয় করতে চান তাদের মধ্যে ৯০ জনই স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। তাদের অধিকাংশই মোবাইল দিয়ে অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করে। তারা চেষ্টা করে কিন্তু সঠিক কাজ না করে ব্যর্থ হয়। ঘরে বসে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার সেরা উপায় 2022।

কে বলে আপনি মোবাইলে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন না?

অনলাইন থেকে আয় করা যায় জানার পর ধীরে ধীরে কাজ শিখতে শুরু করি। তখন চিন্তায় ছিলাম আয় কেমন হবে! কিন্তু যখন আমি মোবাইল রিচার্জে আমার প্রথম উপার্জন পেলাম। আমি তখন বিশ্বাস করি যে অনলাইন থেকে সত্যিই আয় করা যায়। আমার প্রথম আয় ছিল ৫৪ টাকা। আমি একটি Huawei মোবাইল দিয়ে আয় করছিলাম। এই আয়ের পর আমার আত্মবিশ্বাস আরও বেড়ে গেল। তারপর আমি শিখতে শুরু করি এবং আরও সময় ব্যয় করি।

মোবাইল দিয়ে অর্থ উপার্জনের জন্য যে ভুলগুলি করা যায় না:

এটি একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কারণ, আগেই বলেছি। ৯০% মানুষ মোবাইল দিয়ে অর্থ উপার্জনের জন্য ভুল পথ বেছে নেয়। ভুল পথ বেছে না নিয়ে সঠিক পথে কাজ করলে শতভাগ গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি। কাজ করে আপনি কখনই প্রতারিত হবেন না। অবশ্যই টাকা পাবেন।

এজন্য আপনাকে ভুল পথ থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। অথবা আপনি ঐ ৯০% এর মত কাজ করবেন এবং কোন প্রকার পেমেন্ট না পেয়ে আপনি ব্যর্থ হবেন।

মোবাইলে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের উপায়গুলি এখানে রয়েছে:

0১. দ্রুত সাফল্য:

আপনি যদি সঠিক পিচ পেতে না পারেন তবে আপনি হতাশ হতে চান না তাই একটি ভাল ক্যাপোতে বিনিয়োগ করুন। এটা ধৈর্যের কাজ। সফলতা পাওয়ার জন্য ধৈর্য একটি বড় দক্ষতা। তা ছাড়া মোবাইল দিয়ে শুধু আয় নয়, কোনো কাজই সফল হবে না।

0২. অ্যাপ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন:

অ্যাপ থেকে লাখ লাখ টাকা উপার্জনের চিন্তা করবেন না। এমনকি কোনো অ্যাপ থেকে অর্থ উপার্জন করার চেষ্টা করবেন না। এটি করতে গিয়ে আপনি আপনার সমস্ত সময় এবং প্রচেষ্টা নষ্ট করবেন। তবে অ্যাপ থেকে যে আয় হবে তা নয়। অ্যাপ থেকে আয় করা যাবে। কিন্তু ৯৫% মোবাইল অ্যাপে কাজ করার পর পেমেন্ট দেওয়া হয় না। আপনি বাকি 5% অ্যাপ পেমেন্ট করলেও, এটি উপযুক্ত পেমেন্ট নয়।

0৩. পেমেন্ট পদ্ধতি:

যেকোনো প্ল্যাটফর্মে কাজ শুরু করার আগে আপনাকে অর্থপ্রদানের পদ্ধতিটি পরীক্ষা করতে হবে। আপনার সুবিধামত টাকা তুলতে পারলে সেই প্ল্যাটফর্মে কাজ করুন। এমন জায়গায় কাজ করবেন না যেখানে আপনি অর্থ সংগ্রহ করতে পারবেন না।

কোন পেমেন্ট পদ্ধতি কাজ করবে?

বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে টাকা আয় করা যতটা কঠিন নয়, তার চেয়ে বেশি কঠিন টাকা হাতে নেওয়া। তাই কাজ করার আগে আপনাকে পেমেন্ট সুবিধা দেখতে হবে। পাইওনিয়ার মাস্টারকার্ড, বিটকয়েন, বিটকয়েন ক্যাশ, ইথিরাম, ভিসা কার্ড, নেটেলার, ব্যাঙ্ক পেমেন্টস ইত্যাদি যদি আপনার কাছে থাকে তাহলে আপনি সহজেই বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে উপার্জিত টাকা তুলতে পারবেন।

এখানে মোবাইলে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের কিছু উপায় রয়েছে:

সব পথ একসাথে নিয়ে লেখা আমার পক্ষে কখনো সম্ভব নয়। আমার কাজের বিরতির সময় আপনাকে সাহায্য করার জন্য আমি এগুলি লিখি৷ মোবাইল দিয়ে আয় করার অনেক উপায় আছে। তবে এখানে আমি প্যাসিভ আয়ের কিছু উপায় নিয়ে আলোচনা করব।

0১. ব্লগিং থেকে আয়:

ব্লগিং আমার সেরা পছন্দের তালিকার শীর্ষে রয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে আমি ব্লগিং পছন্দ করি। আপনি যদি আমার মত ব্লগিং করে অনলাইনে প্যাসিভ ইনকাম করতে চান। মোবাইল দিয়ে কাজ করার জন্য ব্লগিং একটি সহজ উপায়। আপনি বিনামূল্যে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ব্লগ লেখা শুরু করতে পারেন। কিন্তু দ্রুত সাফল্য পেতে খরচ হয় ৫০০ থেকে এক হাজার টাকা। আপনি একটি টপ-লেভেল ডোমেইন ব্যবহার করতে পারেন।

0২. ভিডিও ব্লগিং:

আপনি যদি ভিডিও ব্লগিং সম্পর্কে না জানেন তবে ইউটিউবে যান এবং অনুসন্ধান করুন। মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও ব্লগিং একটি মজার কাজ। ভিডিও ব্লগিং করে প্রতি মাসে ৩০ থেকে ৫০ হাজার টাকা আয় করা খুব সহজ। আপনি “ভিডিও ব্লগিং” শুরু করার সাথে সাথে আপনি এখান থেকে অর্থ উপার্জনের কথা ভাবতে পারবেন না। আপনাকে প্রথমে আপনার চ্যানেল সেট আপ করতে হবে। ভিডিও ব্লগিং এর জন্য অনেক প্লাটফর্ম আছে। তবে ইউটিউব এবং ফেসবুক সেরা প্লাটফর্ম।

0৩. মোবাইল জরিপে অনলাইন আয়:

লাখ লাখ ছেলে-মেয়ে আছে যারা মোবাইলের মাধ্যমে অনলাইনে জরিপ করে বাংলাদেশ থেকে আয় করছে আপনাকে শুধু অন্য লোকেদের প্রতি আপনার সাহায্যে আরও বৈষম্যমূলক হতে হবে। বাংলাদেশ থেকে কোনো সাইটে সার্ভে কাজ করা যাবে না। তাই এক্ষেত্রে আপনাকে কিছু টুলস ও কৌশল প্রয়োগ করে কাজ করতে হবে। জরিপ কাজ করার জন্য আপনাকে VPN, VPS, IP ইত্যাদি টুল ব্যবহার করতে হবে। এগুলি বিনামূল্যে পাওয়া যায় তবে বেশিরভাগই কাজ করে না। সুতরাং আপনি যদি অর্থ উপার্জন করতে চান তবে প্রিমিয়াম সরঞ্জাম ব্যবহার করুন।

0৪. ভিডিও বিজ্ঞাপন দেখে আয়:

ইন্টারনেট জগতে অনেক ওয়েবসাইট আছে। যারা একটু টাকা দিয়ে ভিডিও দেখেন। ভিডিও দেখে বেশি টাকা আয় করা সম্ভব নয়। তবে মাসে প্রায় ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব।

অনেক বিজ্ঞাপন ওয়েবসাইট বিজ্ঞাপন দেখে অর্থ উপার্জনের সুযোগ দেয়। আমার প্রিয় সাইটগুলির মধ্যে একটি হল: Wintub | এখানে আপনি প্রতিদিন ২৪ সেকেন্ডের ৫টি ভিডিও দেখতে পারবেন। ভিডিওগুলো প্রতি ২৪ ঘণ্টা পর পর দেখা যাবে। ৫টি ভিডিও দেখে প্রতিদিন ১ থেকে ২ ডলার আয় হবে।

0৫. বিনিয়োগ সাইট থেকে আয়:

একটা কথা আছে, ‘বুদ্ধি থাকলে জামাই থাকতে হয় না’। আপনি আপনার নিজের টাকা বিনিয়োগ না করে এখানে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই আয় শুরু করতে একটু বেশি সময় দিতে হবে। আপনি কিছু বন্ধু রেফার করতে পারেন, এটা আপনার জন্য সহজ হবে. আপনি যদি একটি সাইটে আপনার রেফারেলে ৫ থেকে ১০ জন বন্ধু যোগ করতে পারেন, আপনি বিনিয়োগ ছাড়াই উপার্জন করতে পারেন। গুগলে সার্চ করলে এরকম অনেক সাইট পাবেন।

ঘরে বসে মোবাইলে অনলাইনে আয় করার সেরা উপায় 2022

Related Posts

অনলাইনে পণ্য বিক্রি

কীভাবে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করবেন? পণ্য বিক্রি করার সেরা উপায় কি কি 2022-23

আপনি কিভাবে অনলাইন পণ্য বিক্রি করবেন? যদি আপনাদের মধ্যে কেউ অনলাইনে পণ্য বিক্রি করার কথা ভাবছেন, তাহলে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করা আপনার জন্য একটি দুর্দান্ত সিদ্ধান্ত। আজকাল,…

Google AdSense

Google AdSense কি: AdSense থেকে টাকা আয় করার উপায়?

Google AdSense অনলাইনে অর্থ উপার্জনের অন্যতম জনপ্রিয় উপায়, কিন্তু প্রশ্ন হল, এটা কি সত্যি নাকি আদৌ সম্ভব? আমি কি সবসময় অ্যাডসেন্স থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারি? সেখান…

Leave a Reply

Your email address will not be published.