অনলাইনে নতুন ভোটার আইডি কার্ড তৈরি করার নিয়ম ২০২২। NID Registration Bangladesh

অনলাইনে নতুন ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন বাংলাদেশ। আমাদের ওয়েবসাইটে ন্যাশনাল আইডি কার্ড অনলাইন রেজিস্ট্রেশন লিঙ্ক এখন রয়েছে। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন একটি ভোটার আইডি কার্ড বা ন্যাশনাল আইডি কার্ডের জন্য বাংলাদেশী নতুন ১৮ বছর বয়সী ব্যক্তিদের আবেদন করার সুযোগ দিয়েছে। নতুন ভোটার নিবন্ধন, অনলাইন নতুন ভোটার আইডি কার্ড (NID Card Registration) নিবন্ধন, অনলাইনে আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করুন, নতুন ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন অনলাইন প্রক্রিয়া, ন্যাশনাল আইডি কার্ড অনলাইন রেজিস্ট্রেশন, মৃত্যু ভোটার মুছে ফেলা, এনআইডি কার্ড বিতরণ, নিচে থেকে নতুন ভোটার আইডি রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ার বিশদ বিবরণ দেয়া হল।

নতুন ভোটার নিবন্ধনঃ

ভোটার তালিকা হালনাগাদ একটি চলমান প্রক্রিয়া। ২০২২ সালের জন্য, আপনি যদি একজন বাংলাদেশী নাগরিক হন। প্রায়শই একটি এলাকায় থাকেন এবং ১লা জানুয়ারী ২০২২ এর আগে আপনার বয়স ১৮ বা তার বেশি কিন্তু এখনও ভোটার হিসাবে নিবন্ধিত হননি। তাহলে আপনি ভোটার হিসাবে নিবন্ধন করতে পারেন। এছাড়াও, ২রা জানুয়ারী ১৯৯৭ থেকে ১লা জানুয়ারী ২০০০ এর মধ্যে জন্মগ্রহণকারী নাগরিকরা নিবন্ধন করতে পারেন। তবে ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত তাদের ভোটার হিসাবে গণ্য করা হবে না। তালিকাভুক্তির সময়, আপনার কিছু কাগজপত্র প্রয়োজন।

অনলাইন নতুন ভোটার আইডি কার্ড (NID) নিবন্ধনঃ

নতুন ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন অনলাইন বাংলাদেশনতুন ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন অনলাইন বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের একটি বর্তমান প্রক্রিয়া। ভোটার আইডি কার্ড রেজিস্ট্রেশন আগে হাতে হাত রেখে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। বেশ কয়েকটি এজেন্ট আইডি কার্ডধারীদের বাড়িতে যাচ্ছে এবং তারা জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য নিবন্ধিত হয়েছিল। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ মানুষকে এভাবে বন্দী করা হলেও কিছু লোককে কোনো কারণে কেটে ফেলা হয়েছে। তারা পরের বছর নিবন্ধন করার অপেক্ষায় ছিল। কিন্তু এই বছর ২০২২ নতুন ভোটার আইডি কার্ডধারীরা অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশনের কিছু নিয়ম আছে। যেমন:-

১. ভোটার আইডি কার্ড জন্মসূত্রে বাংলাদেশী হতে হবে।
২. বয়স ১লা জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) ২০২২ অনুযায়ী ১৮ হতে হবে।

অনলাইনে আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করুনঃ

কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি আছে যেগুলো রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সেগুলো নিচে দেওয়া হল:-

১. SSC সার্টিফিকেট (বয়স যাচাইয়ের প্রশংসাপত্র)
২. জন্ম প্রশংসাপত্র (বয়স যাচাইয়ের প্রশংসাপত্র)
৩. পাসপোর্ট/ ড্রাইভিং লাইসেন্স/ টিআইএন (বয়স যাচাইয়ের প্রশংসাপত্র)
৪. ইউটিলিটি বিলের ফটোকপি / বাড়ি ভাড়ার রসিদ / হোল্ডিং ট্যাক্স রসিদ (নাগরিকত্ব যাচাইকরণ প্রশংসাপত্র)
৫. নাগরিকত্ব প্রশংসাপত্র (প্রযোজ্য হিসাবে)
৬. বাবা, মা, স্বামী/স্ত্রীর আইডি কার্ডের ফটোকপি (প্রযোজ্য হলে)

নতুন ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন অনলাইন প্রক্রিয়াঃ

আপনি সঠিকভাবে অনলাইনে ভোটার নিবন্ধন প্রক্রিয়া করতে পারেন। এটা মনে রেখ; আপনি যদি একজন বিদ্যমান ভোটার হন, তাহলে অনলাইনে পুনরায় আবেদন করার দরকার নেই। আবার রেজিস্ট্রেশন করলে শাস্তি পেতে হবে। শুধুমাত্র ১৮ বছর বয়সী মানুষ এবং বিদেশী বা বহিষ্কৃত ভোটাররা অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারেন।

ধাপঃ

১. অনুগ্রহ করে বৈধ তথ্য সহ ধাপে ধাপে নম্র অনলাইন নিবন্ধন ফর্মটি পূরণ করুন৷
২. সমস্ত তথ্য আপনার পুরো নাম ছাড়াই বাংলা ভাষা (ইউনিকোড) পূরণ করুন।
৩. সমস্ত ফর্ম পূরণের ধাপগুলি সম্পূর্ণ করার পরে, অনুগ্রহ করে আপনার সমস্ত তথ্য আবার পরীক্ষা করুন৷
৪. তারপর আপনার নিকটতম নির্বাচনী অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ এই ফাইলটি প্রিন্ট করতে এবং জমা দেওয়ার জন্য একটি পিডিএফ ফাইল তৈরি করুন
৫. আপনি যখন সমস্ত ফাইল জমা দেবেন তখন নির্বাচন কর্মকর্তারা আপনার তথ্য যাচাই করবেন, তারা আপনার ভোটার আইডি তৈরি করার প্রক্রিয়া শুরু করবেন

বর্তমান ভোটার আইডি কার্ড বা ১৫ বছরের জন্য বৈধ জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) কার্ডের মালিকদের নাম, তাদের পিতামাতার নাম, জন্ম তারিখ, এবং নির্দিষ্ট আইডি নম্বর এবং অন্য পাশে আবাসিক ঠিকানা রয়েছে।

ন্যাশনাল আইডি কার্ড অনলাইন রেজিস্ট্রেশনঃ

যারা ইতিমধ্যেই ভোটার হিসেবে নিবন্ধন করেছেন কিন্তু তাদের ভোটার এলাকা স্থানান্তর করতে হবে তাদের একটি মাইগ্রেশন ফর্ম পূরণ করতে হবে। এসব ফরম যাচাইয়ের জন্য সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসে পাঠাতে হবে। আইডি কার্ডের একটি ফটোকপি মাইগ্রেশন ফর্মের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

মৃত্যু ভোটার মুছে ফেলাঃ

আপনাকে ফর্ম-১২ পূরণ করে সক্রিয় ভোটার তালিকা থেকে তাদের নাম মুছে ফেলার জন্য মৃত ভোটারদের সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিসকে জানাতে হবে।

এনআইডি কার্ড বিতরণঃ

যেসব ভোটার নিবন্ধিত হয়েছেন, কিন্তু যাদের এনআইডি কার্ড এখনও হস্তান্তর করা হয়নি তারা সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা নির্বাচন অফিস থেকে তাদের এনআইডি কার্ড সংগ্রহ করবেন।

Related Posts

ই-পর্চা eporcha gov bd

ই-পর্চা, www.eporcha.gov.bd, খতিয়ান, অনলাইনে ই-পর্চা, অনলাইনে জমির মালিকানা যাচাই, হটলাইন নম্বর

ই-পর্চা, বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয়ের ই-পর্চা সেবা একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ। www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইটে, আপনি যেকোনো খাতা দেখতে পারেন বা একটি প্রত্যয়িত অনুলিপির জন্য অনুরোধ করতে পারেন। ই-পর্চা হল বাংলাদেশের…

E-Porcha ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd

E-Porcha ই-পর্চা, www.eporcha.gov.bd, Land Services, RS Khatian, Mouza Map Online Application

Through the e-porcha (www.eporcha.gov.bd) (www.bangladesh.gov.bd) portal, Bangladeshi citizens can verify land ownership online at any time and download the ledger. E-Porcha Web Portal is a web service…

www-eporcha-gov-bd

ই-পর্চা www-eporcha-gov-bd, কিভাবে জমির মালিকানা বের করবেন? খতিয়ান কি?

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বাংলাদেশের জনগণের জন্য ই-পর্চা দেখতে অনেক সহজ করে দিয়েছে। এবার আশা করি সহজে দেখতে পারবেন? আপনি যদি মোবাইল বা কম্পিউটারের মাধ্যমে আপনার জমির রেকর্ড…

www.eporcha.gov.bd

ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd, অনলাইনে যে কোন খতিয়ান যাচাই প্রক্রিয়া 2022, খতিয়ান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের হটলাইন নম্বর, লগইন ই-পর্চা

বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয় ই-পর্চা, ই-পর্চা সেবা নিয়ে একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেছে। একটি প্রত্যয়িত অনুলিপির জন্য আবেদন করতে www.eporcha.gov.bd এ যান। একটি নতুন সেবা, ই-পর্চা, সম্প্রতি গণপ্রজাতন্ত্রী…

E-Porcha ই-পর্চা www.eporcha.gov.bd

ই-পর্চা, www.bangladesh.gov.bd, খতিয়ান, মৌজা, www.eporcha.gov.bd

জমির ক্ষেত্রে খতিয়ান মানে ‘হিসাব’। জমির মালিকানা রক্ষা ও রাজস্ব আদায়ের জন্য প্রতিটি মৌজার জমির এক বা একাধিক মালিকের নাম, পিতা বা স্বামীর নাম, ঠিকানা, দাগ নম্বর,…

eporcha-gov-bd

ই-পর্চা বা ই-খতিয়ান, www.eporcha.gov.bd অনলাইনে যে কোন খতিয়ান মালিকানা যাচাই প্রক্রিয়াকরণ ২০২২

আপনি এখান থেকে ই-পর্চা সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য জানতে পারবেন। তাই যারা ই-পর্চা সম্পর্কে জানতে অনলাইনে অনুসন্ধান করে আমাদের ওয়েবসাইটে আসেন তারা এখান থেকে এটি সম্পর্কে আরও জানতে…

Leave a Reply

Your email address will not be published.